আজকের সকল শিরোনাম
ফটোগ্যালারি
সোমবার, ঢাকা ॥ ৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ ॥ ২৬ মাঘ ১৪২২ ॥ ২৮ রবিউস সানি ১৪৩৭
সংবাদ শিরোনাম :
চাঁদাবাজি মামলায় নূর হোসেনের জামিন নামঞ্জুর      আপিল বিভাগের দুই বেঞ্চের পুনর্গঠন       ‘বিশ্বব্যাংক, যুক্তরাষ্ট্র, জাতিসংঘ- দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির প্রশংসা করছে’      দেবতা রামের বিরুদ্ধে মামলা !      শেখ জামালের কোচ হচ্ছেন শফিকুল ইসলাম      রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১      স্পেনে ৭ আইএস জঙ্গি গ্রেপ্তার      
ডায়াবেটিস রোগীদের ব্যায়ামের কিছু মিথ
Published : Monday, 8 February, 2016 at 11:43 AM
অনলাইন ডেস্ক
ডায়াবেটিস রোগীদের ব্যায়ামের কিছু মিথডায়াবেটিস টাইপ ১ কিংবা টাইপ ২ কে নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রতিদিন রুটিনমতো ব্যায়ামের বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে ব্যায়ামের এমন কিছু মিথ আছে, যেগুলো অনুসরণ করলে লাভের চেয়ে ক্ষতি হতে পারে বেশি। আপনি যদি ডায়াবেটিস রোগী হয়ে থাকেন, তাহলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের কার্যকর উপায় কিন্তু আপনাকেই খুঁজে নিতে হবে। কাজেই সময় থাকতেই সচেতন হোন। কেননা এক্ষেত্রে শারীরিক ব্যায়াম নিয়ে এমন কিছু প্রচলিত ভ্রান্ত ধারণা আছে, যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণকে প্রভাবিত করতে পারে।

# ব্যায়াম করলে ক্লান্ত হয়ে পড়বেন
ডায়াবেটিস রোগীদের অনেকেই আছেন যারা ব্যায়াম করার আগেই অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করে থাকেন। তারা ভাবেন, ব্যায়াম করলেই অনেক ক্লান্ত হয়ে পড়বেন। ফলে তারা অল্প ব্যায়াম করেন। এতে তাদের কাজের পাশাপাশি শর্করার উপর এক ধরনের নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। কিন্তু সত্যি এটাই, সবাই একসঙ্গে ক্লান্ত হয়ে পড়েন না। বরং যাদের রক্তে শর্করার পরিমাণ কম রয়েছে তারাই ব্যায়ামের পর ঝুঁকিতে থাকেন। এটা সাধারণত টাইপ-১ ডায়াবেটিস রোগীদের ক্ষেত্রেই বেশি হয়ে থাকে। তবে শরীরে শর্করার পরিমাণ ঠিক থাকলে খাওয়ার আগে কিংবা পরে আপনি হাঁটতেই পারেন।

রুটিন মেনে হাঁটাচলার ক্ষেত্রে আপনি ক্লান্ত হতে পারেন। তবে হাঁটলে যদি আপনার কর্মদক্ষতা বেড়ে যায়, তাহলে সেটা দোষের নয়। কিন্তু যদি ব্যায়ামের পর আপনি অনেক ক্লান্ত বোধ করেন। তাহলে শরীরে শক্তির মাত্রা ঠিক রাখতে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। তার কাছ থেকেই জেনে নিন আপনার কখন, কতক্ষণ কিংবা কেমন পরিশ্রম করা উচিত।   

# মেদ কমাতে পেটের ব্যায়াম করুন
যুবক কিংবা বৃদ্ধ বয়সে পেটে চর্বি জমতেই পারে। এটি শুধু বিপাকীয় সিন্ড্রোমের সঙ্গেই জড়িত নয়। একইসঙ্গে ডায়াবেটিস হওয়ার পূর্ব লক্ষণও বটে। কাজেই এই চর্বি থেকে মুক্তি পেতে শুধু পেটের ব্যায়াম করলেই হবে না। বরং মেদ কমাতে উন্নত জীবনযাপনও আবশ্যক। তাই এ সময় পেটের মেদ কমাতে গবেষকরা ব্যায়ামের পাশাপাশি খাবার খাওয়ার উপর নজর দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তারা বলেছেন, পেটের চর্বি কমাতে স্বাস্থ্যকর ডায়েটের পাশাপাশি নিয়মিত ব্যায়ামও জরুরি।

# অস্বাস্থ্যকর খাবার খেয়ে ব্যায়াম করুন
মেদ কমাতে পরিমিত কার্বোহাইট্রেড এবং পুষ্টিকর খাবারের পাশাপাশি ব্যায়াম একটি স্মার্ট উপায় হতে পারে। তবে অনেকেই আছেন যারা মনেপ্রাণে এটা বিশ্বাস করেন যে, বেশি পরিমাণে অস্বাস্থ্যকর খাবার খেয়েও কেবল ব্যায়ামের মাধ্যমেই মেদ কমানো সম্ভব। এক্ষেত্রে কিছু কিছু লোকের ক্ষেত্রে ক্যালোরি গ্রহণ এবং ব্যায়ামের মাধ্যমে খরচ করা হয়তো সত্যি হতে পারে। কিন্তু প্রত্যেকেরই হজমক্রিয়া এবং কর্মশক্তি এক নয়। তাই ক্যালোরি গ্রহণ নয়, বরং ওজন কমানো এবং বাড়ানোই এখানে মূল বিষয়। এক্ষেত্রে ব্যায়াম নানা প্রভাব ফেলতে পারে।

তথ্যসূত্র: ইনফরমেশন অ্যাবাউট ডায়াবেটিস।





সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত