আজকের সকল শিরোনাম
ফটোগ্যালারি
বুধবার, ঢাকা ॥ ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ ॥ ২৮ মাঘ ১৪২২ ॥ ৩০ রবিউস সানি ১৪৩৭
সংবাদ শিরোনাম :
ভালবাসি ভালবাসি
Published : Wednesday, 10 February, 2016 at 12:00 AM
ভালবাসি ভালবাসিভালবাসার অনুভূতি কত রকম হতে পারে? সে যা-ই হোক, সব অশ্রু মুছে ফেলি/সব দুঃখ ভুলে যাই/শুধু এই প্রেমের গৌরবে
Ñমহাদেব সাহার কবিতার এ প্রতিশ্রুতির পূর্ণতা দিতে পারে শুধু ভালবাসার মানুষই। সে হতে পারে বিশেষ একজন, পরিবারের কেউ বা বন্ধু। কারণ ভালবাসার নির্দিষ্ট কোনো সীমা-পরিসীমা নেই, নেই কোনো বয়স। তবে বিশ^ ভালবাসা দিবসে প্রেমিক যুগলের ভালবাসাই যেন রঙ ছড়ায় ডায়েরির পাতায়।
তারুণ্যের অনাবিল আনন্দ আর বিশুদ্ধ উচ্ছ্বাসে চলছে ভালবাসা দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি।
ভালবাসা সম্পর্কে কবি আসাদ চৌধুরী বলেন, ‘সত্যিকার ভালবাসা অপরের সুখে নিজেকে উজাড় করে বিলিয়ে দিতে শেখায়, শেখায় সুখ-দুঃখ, হাসি-আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে। ভালবাসার মতোই ভালবাসা দিবস। জীবনের প্রতিদিনই হয়ে উঠুক ভালবাসা দিবস।’
ভালবাসার মানুষটিকে খুশি করতে অনেকেই অনেক রকম আয়োজন করে, নানাকাজে প্রকাশ করেন ভালবাসার অভিব্যক্তি। মুখ ফুটে হয়তো কখনো জানাতেই পারেনি ভালবাসার কথাটি। হয়তো প্রতিদিনই দেখা হচ্ছে, হয়তো কোনো কাছেরই বন্ধু, কিন্তু তবুও তখনো বলা হয়নি ‘ভালবাসি’। এ রকম ক্ষেত্রে বুঝে নিতে হবে দুজনকেই। কারণ হৃদয়ের এই যে লুকোচুরি, এ তো ভালবাসারই অন্যরূপ। এমন কিছু যদি ঘটে থাকে আপনার জীবনে, তবে কী করবেন? সাড়া দেবেন, নাকি চুপচাপ বয়ে যেতে দেবেন সেই বিশেষ আবেগের স্রোতটাকে? শেষের কাজটা করা বোধহয় ভুলই হবে। কারণ ভালবাসার ভেলায় ভাসতে দুজনাই দুজনার হাতটি শক্ত করে ধরা প্রয়োজন। তাই আপনার দিক থেকেও যদি যথেষ্ট সাড়া থাকে, আপনিও যদি বুঝতে পারেন সে আপনাকে ভালবাসে, তখন মুখ ফুটে বলেই ফেলুন না ‘ভালবাসি’। তবে মনের কথাটি বলার আগে পরিবেশ পরিস্থিতি বিবেচনা করুন, নইলে ভালবাসা নামক বটবৃক্ষটি অঙ্কুরেই বিনষ্ট হবে।
ভালবাসার মানুষটিকে ভালবাসার কথা জানানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে তার সামনে দাঁড়িয়ে চোখে চোখ রেখে বলা। আর সে সময় ১০৮টা নীলপদ্ম না হোক অন্তত একটা লাল গোলাপ হাতে থাকা চাই। কারণ ফুল হাতে সামনাসামনি ভালো লাগার কথা বলার মধ্যে যে অকৃত্রিম আবেগ, তা এসএমএস বা ফেসবুকে নেই। মনের কথা জানানোর পর অপেক্ষা করুন। তাকে ভাবতে দিন। বারবার ফোন কিংবা এসএমএস করে উত্তর জানতে চাইলে হিতে বিপরীত হতে পারে।  
কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেনের কাছে তাদের সময় ভালবাসার আদান-প্রদান কেমন ছিল জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমাদের সময় যোগাযোগ একটি বিরাট সমস্যা ছিল। ইচ্ছেমতো যখন তখন যোগাযোগ করা কিংবা দেখা করা তো দূরের কথা, সামাজিক বা পারিবারিক বাধা-নিষেধের কারণে একটা চিঠির জন্যও তখন কি-না অপেক্ষা! আজকাল সেসব কল্পনাও করতে পারবে না। তবে এখন তরুণ প্রজন্ম যে তাদের ভালবাসার কথাটি সহজেই প্রকাশ করতে পারছে এটা কিন্তু কম ইতিবাচক নয়।’
‘শুধু ভালবাসলেই হবে না। সঙ্গিনীকে নিয়ে সুখী হওয়ার চেষ্টাও করতে হবে। ভালবাসার পাশাপাশি ভালবাসার মানুষটিকে শ্রদ্ধা, সম্মান করতে হবে। সেই সঙ্গে থাকা চাই বিশ^াস। কারণ বিশ^াস ছাড়া ভালবাসা টেকে না। ভালবাসার শুরুতেই বুঝতে চেষ্টা করুন, আপনার ভালবাসার মানুষটির মানসিকতা। সম্পর্কে সমস্যা যাই হোক, তা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করার চেষ্টা করুন। ‘ভালবাসা টিকিয়ে রাখতে নাট্যব্যক্তিত্ব সারা যাকের দিয়েছেন এমনই পরামর্শ।




সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত