আজকের সকল শিরোনাম
ফটোগ্যালারি
বুধবার, ঢাকা ॥ ১০ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ ॥ ২৮ মাঘ ১৪২২ ॥ ৩০ রবিউস সানি ১৪৩৭
সংবাদ শিরোনাম :
কাছে দূরে ঘুরে ফিরে
Published : Wednesday, 10 February, 2016 at 12:00 AM
এম মাহফুজুর রহমান
কাছে দূরে ঘুরে ফিরেকর্মব্যস্ত জীবনে একটু অবসর সবারই দরকার। আর অবসরের এই সময়ে পরিবারের সবাই মিলে কোথাও ঘুরতে যাওয়া চাই-ই-চাই । তার ওপর আবার সামনে বসন্ত বরণ উৎসব ও বিশ্ব ভালবাসা দিবস। এ সময়ে পরিবারের সবাই মিলে অথবা প্রিয়জনকে সঙ্গে নিয়ে ঘুরতে যাওয়ার মজাই আলাদা। আর তাই ঘুরতে যাওয়ার জন্য বেছে নিতে পারেন ফ্যান্টাসি কিংডম অথবা ফয়’স লেকে। কনকর্ড এন্টারটেইনমেন্ট কো. লি.-এর ঢাকার ফ্যান্টাসি কিংডম, ওয়াটার কিংডম ও হেরিটেজ পার্ক এবং চট্টগ্রামের ফয়’স লেক বিনোদনপিপাসুদের কাছে জনপ্রিয় স্থান। এখন শীতকাল; নতুন বছর, তার সঙ্গে যদি যোগ হয় কোথাও বেড়াতে যাওয়া, পিকনিক করা তাহলে তো কথাই নেই। যারা পিকনিক করতে আগ্রহী তাদের জন্য কনকর্ড এন্টারটেইনমেন্ট কো. লি.-ফ্যান্টাসি কিংডম, ওয়াটার কিংডম, হেরিটেজ পার্ক এবং ফয়’স লেক চলছে দারুণ সব পিকনিক ইভেন্টস। বিনোদনের সব সুযোগ-সুবিধা নিয়ে গড়ে ওঠা এই কমপ্লেক্সে রয়েছে ফ্যান্টাসি কিংডম, ওয়াটার কিংডম, এক্সট্রিম রেসিং (গো কার্ট), রিসোর্ট আটলান্টিস ও হেরিটেজ পার্কÑ এ পাঁচটি বিশ্বমানের বিনোদন কেন্দ্র। এ ছাড়া চট্টগ্রামে অবস্থিত বিনোদন কেন্দ্র ফয়’স লেক কনকর্ড, সি ওয়ার্ল্ড কনকর্ড ও ফয়’স লেক রিসোর্ট এই তিন বিনোদন কেন্দ্র নিয়ে গড়ে উঠেছে ফয়’স লেক কমপ্লেক্স।
ফ্যান্টাসি কিংডম : ঢাকার অদূরে অবস্থিত বিনোদনের স্বর্গরাজ্য বলে খ্যাত ফ্যান্টাসি কিংডম বিনোদনপ্রিয় বাঙালিদের কাছে একটি জনপ্রিয় নাম। বিশ্বমানের বিনোদন সেবা, চমৎকার ল্যান্ড স্কেপিং ও উত্তেজনাকর সব রাইডস নিয়ে তৈরি ফ্যান্টাসি কিংডম, যা এরই মধ্যে বিনোদনপিপাসু ছোট-বড় সবার কাছে বিনোদনের স্বর্গরাজ্য হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। দুরন্ত গতিতে ছুটে চলা রোমাঞ্চকর অনুভূতি ও শিহরণ জাগানো রাইড রোলার কোস্টার এই পার্কের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাইডগুলোর মধ্যে অন্যতম। বিনোদনের স্বর্গরাজ্য এই ফ্যান্টাসি কিংডমের রাজা আশু ও রানী লিয়া। বিশ্বমানের আদলে তৈরি এই পার্কের সবকিছুর মধ্যে রয়েছে রাজা-রানির সেই হারানো রাজ্যের সুর। এ ছাড়া রয়েছে
জায়ান্ট ফেরিস হুইল, জুজু ট্রেন, হ্যাপি ক্যাঙ্গার, বাম্পার কার, ম্যাজিক কার্পেট, সান্তা মারিয়া, জায়ান্ট স্পø্যাশ, জিপ অ্যারাউন্ড, পনি অ্যাডভেঞ্চার, ইজি ডিজিসহ ছোট-বড় সবার জন্য মজাদার সব রাইডস।
বিনোদন করতে এসে দর্শনার্থীদের রসনা বিলাসের জন্য রয়েছে তিন তারকা মানের রেস্টুরেন্ট আশু ক্যাসল ও ওয়াটার টাওয়ার ক্যাফে। চমৎকার ও আকর্ষণীয় সব দেশি ও বিদেশি খাবারের সমারোহ রয়েছে এসব রেস্টুরেন্টগুলোয়। এ ছাড়া পুরো পার্কের ভেতর ছড়িয়ে রয়েছে আরও অনেক ছোট ছোট ফুড কোর্ট। সেখানে পাবেন মুখরোচক সব খাবার ও ফাস্টফুড। বিনোদনের এই রাজ্যে রয়েছে গিফট শপ। এগুলোতে পাওয়া যায় রকমারি সব গিফট। ৪০০ গাড়ি পার্র্কিংয়ের সুব্যবস্থাসহ এই পার্কের নিরাপত্তা ব্যবস্থাও চমৎকার। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে পার্ক কর্তৃপক্ষ সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ও অন্যান্য দিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত পার্ক খোলা রাখে।
ওয়াটার কিংডম : সুবিশাল জলরাজ্যে বিনোদন এক অভাবনীয় সুযোগ, যা কিনা কনকর্ড ওয়াটার কিংডমেই সম্ভব। মাটির নিচ দিয়ে মনোমুগ্ধকর ও আকর্ষণীয় ভার্চুয়াল অ্যাকুরিয়াম টানেল পার হয়ে প্রবেশ করতে হয় ওয়াটার কিংডমে। কৃত্রিমভাবে সৃষ্ট সাগরের উত্তাল ঢেউ তৈরি করা রাইড ওয়েভ পুল এই পার্কের সবচেয়ে আকর্ষণীয় রাইড। এ ছাড়া এ পার্কে রয়েছে স্পাইড ওয়ার্ল্ড, ফ্যামিলি পুল, টিউব স্পাইড, লেজি রিভার, মাল্টি স্পাইড, ওয়াটার ফল, ডুম স্পাইড, লস্ট কিংডম, ড্যান্সিং জোনসহ মজাদার সব রাইডস। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে এ পার্কে রয়েছে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য দুটি আলাদা চেঞ্জ রুম ও লকারের ব্যবস্থা।
দর্শনার্থীরা নিজেদের সঙ্গে অতিরিক্ত কাপড় ও তোয়ালে আনতে পারেন, এ ছাড়া এখানে তোয়ালে ও সুইম স্যুট ভাড়া নেওয়ার ব্যবস্থাও রয়েছে। কেনাকাটা ও খাওয়া-দাওয়ার জন্য রয়েছে গিফট শপ, একাধিক ফুড কোর্ট ও আইসক্রিম শপ। দর্শনার্থীদের সুবিধার্থে পার্ক কর্তৃপক্ষ সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির দিনগুলোতে সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত এবং অন্যান্য দিনগুলোতে বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত পার্ক খোলা রাখে। বছরের বিশেষ দিনগুলোকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য পার্ক কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন বিনোদনমূলক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে। এ ছাড়া পার্ক কর্তৃপক্ষ দর্শনার্থীদের জন্য আয়োজন করেছে ডিজে শো, ড্যান্স শো, গেম শো, র‌্যাফেল ড্র, অ্যাক্রোব্যাট শোসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের। ঈদের এই বিশেষ দিনগুলোতে ওয়াটার কিংডম বর্ণিল সাজে সজ্জিত হবে।
হেরিটেজ পার্ক : ইতিহাস-ঐতিহ্য ও বিভিন্ন সংস্কৃতির সমন্বয়ে গড়ে ওঠা আমাদের এই বাংলাদেশ। আর এই ইতিহাস ও সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার প্রয়াসেই গড়ে উঠেছে হেরিটেজ পার্ক কনকর্ড। দেশের ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা ও চমৎকার সব রাইডস নিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে এই হেরিটেজ পার্ক। হেরিটেজ পার্কে যেসব ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা রয়েছে তাদের মধ্যে জাতীয় স্মৃতিসৌধ, আহসান মঞ্জিল, চুনাখোলা মসজিদ, কান্তজীর মন্দির, জাতীয় সংসদ ভবন, ষাট গম্বুজ মসজিদ, পাহাড়পুর বৌদ্ধ বিহার, সীতাকোট বিহার, পুটিয়া রাজবাড়ি ও গ্রিক মেমোরিয়াল উল্লেখযোগ্য। ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির সঙ্গে পরিচিত হওয়ার পাশাপাশি সপরিবারে এই পার্কের মজাদার সব রাইডস উপভোগ করতে পারবেন। এই পার্কের উল্লেখযোগ্য রাইডসগুলো হচ্ছে কফি কাপ, ফ্যামিলি রোলার কোস্টার, পাইরেট শিপ, ফ্যামিলি ট্রেন, ড্রাই স্পাইড, প্যাডেল বোট, জায়ান্ট ফেরিস হুইল, ফ্লুম রাইড, বাউন্সি স্পাইড, বাউন্সি ক্যাসল, ব্যাটারি কার, সার্কাস সুইং ও ঈগলু হাউস। খাওয়া-দাওয়ার জন্য অত্যাধুনিক রেস্টুরেন্ট ও ফুড কোর্টের ব্যবস্থাও রয়েছে এই পার্কে।
একঘেয়ে কর্মব্যস্ত নাগরিক জীবন থেকে সাময়িক অবসর নিয়ে সপরিবারে ও বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে আনন্দমুখর একটি দিন কাটানোর জন্য হেরিটেজ পার্ক কনকর্ডে পাঁচটি সুবিশাল পিকনিক স্পট রয়েছে। বৃক্ষরাজির সবুজ-শীতল ছায়ায়, মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে আপনজনদের নিয়ে একটি আনন্দঘন সুন্দর দিন কাটানোর জন্য হেরিটেজ পার্ক একটি আদর্শ স্থান।



সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত